Breaking News
COVID-19

Paragraph: COVID-19 (Bangla meaning)

1.

a. What is COVID-19?
b. How is it caused?
c. What are the symptoms?
d. What is the treatment of COVID-19?
e. What preventive measures can be taken against it?

COVID-19 : Symptom and Prevention (কোভিড-১৯ : উপসর্গ ও প্রতিরোধ)

COVID stands for Coronavirus Disease. It is termed as coronavirus or COVID-19 since it first infected humans in 2019. Coronavirus primarily spreads through physical contact and respiratory droplets. People with COVID-19 may have a wide range of symptoms. These may appear in two to fourteen days after the exposure to the virus. The common signs include fever, dry cough, tiredness, loss of taste or smell, muscle aches, headache, sore throat, runny nose, vomiting, diarrhoea, etc. Some people may experience worsened symptoms like acute shortness of breath and pneumonia. Older people and those with underlying medical problems such as heart disease, diabetes, chronic respiratory disease and cancer are more likely to develop serious illness. Scientists around the world have invented a number of vaccines in order to boost up our immune system for fighting coronavirus. Some of them are AstraZeneca, Pfizer, Moderna, Sinopharm Sinovac, Sputnik V, etc. Though Bangladesh has invented a vaccine named Bangavax, it is yet to be applied on human bodies. Besides, Molnupiravir, the first oral medicine for COVID-19, is now available in several countries. Still, preventive measures are the best ways to stay safe from COVID-19. While going out, we must wear masks to cover our nose and mouth. We should thoroughly and regularly clean our hands with an alcohol-based hand rub or wash them with soap and water. We should avoid touching face, nose and eyes as virus can enter our body through them. Moreover, while sneezing or coughing, we should cover our face and nose with a tissue or by elbow. In addition to that, we should maintain social distance of minimum 3 feet. Anyone with the possible symptoms must be isolated in order to avoid close contact with others. Therefore, staying safe from COVID-19 mostly depends on personal hygiene.

Read > Book Fair
Read > Gender Discrimination or Disparity
Read > A Moonlit Night

বঙ্গানুবাদ : কোভিড হলো করোনাভাইরাস ডিজাজ-এর সংক্ষিপ্ত রূপ। যেহেতু এটি ২০১৯ সালে প্রথমবারের মতো মানুষকে সংক্রমিত করে, তাই একে কোভিড-১৯ নামকরণ করা হয়। করোনাভাইরাস প্রধানত সংস্পর্শ ও শ্বাস-প্রশ্বাসের জলকণার মাধ্যমে ছড়ায়। কোভিড-১৯ -এ আক্রান্ত মানুষের বিভিন্ন ধরনের উপসর্গ দেখা দিতে পারে। এগুলো ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার ২-১৪ দিনের মধ্যে দেখা দিতে পারে। সাধারণ লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে জ্বর, শুকনো কাশি, ক্লান্তিভাব, স্বাদ ও গন্ধ না পাওয়া, পেশী ব্যথা, মাথাব্যথা, গলা ব্যথা, নাক দিয়ে পানি পড়া, বমি, ডায়রিয়া ইত্যাদি। কারো কারো গুরুতর উপসর্গ দেখা দিতে পারে, যেমন- প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট ও নিউমোনিয়া। বয়স্ক ও মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা যেমন- হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, দীর্ঘস্থায়ী শ্বাসকষ্ট ও ক্যান্সার ইত্যাদিতে আক্রান্ত ব্যক্তিদের গুরুতরভাবে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। বিশ্বজুড়ে বিজ্ঞানীরা করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য বেশ কয়েকটি টিকা আবিষ্কার করেছেন। তাদের মধ্যে কয়েকটি হলো অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার, মডার্না, সিনোফার্ম, সিনোভ্যাক, স্পুটনিক ফাইভ প্রভৃতি। বাংলাদেশ বাভ্যাক্স নামক একটি টিকা উদ্ভাবন করলেও সেটি এখনও মানবদেহে প্রয়োগ করা হয়নি। এছাড়াও, কোভিড-১৯-এর প্রথম খাওয়ার ওষুধ মলনুপিরাভির এখন অনেক দেশে পাওয়া যাচ্ছে। তথাপি, প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাই কোভিড-১৯ থেকে নিরাপদ থাকার সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা। বাইরে বেরোনোর সময় আমাদেরকে নাক ও মুখ ঢেকে রাখার জন্য মাস্ক পড়তে হবে। অ্যালকোহল সমৃদ্ধ হ্যান্ড রাব বা সাবান-পানি দিয়ে নিয়মিত ও ভালো করে আমাদের হাত পরিষ্কার করতে হবে। আমাদের মুখ, নাক ও চোখ স্পর্শ করা পরিহার করতে হবে, কেননা এগুলো দিয়ে ভাইরাস আমাদের দেহে প্রবেশ করতে পারে। অধিকন্তু, হাঁচি-কাশি দেওয়ার সময় আমাদের মুখমন্ডল ও নাক টিস্যু বা কনুই দিয়ে ঢেকে রাখা উচিত। তাছাড়াও, আমাদের কমপক্ষে ৩ ফুট সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা উচিত। সম্ভাব্য লক্ষণ রয়েছে এমন ব্যক্তিকে আলাদা রাখতে হবে যাতে অন্যরা তার সংস্পর্শে আসতে না পারে। সুতরাং, কোভিড-১৯ থেকে সুরক্ষিত থাকা অনেকাংশে ব্যক্তিগত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার উপর নির্ভর করে।

2,
a. When did the COVID-19 vaccination campaign start in Bangladesh?
b. Where to register for vaccination?
c. What is the current status of vaccination in our country?
d. Which vaccines are available in Bangladesh?
e. Who are eligible for the vaccination in our country at present?

COVID-19 Vaccination Campaign in Bangladesh (বাংলাদেশে কোভিভ-১৯ টিকাদান কর্মসূচি)

Keeping pace with the whole world, the Bangladesh government has a plan to vaccinate 80% people by early 2022. Among the 7 approved vaccines, Pfizer-BioNTech by Germany, Moderna by the USA. Sinopharm and Sinovac by China, and AstraZeneca by the UK are being currently administered here. Bangladesh has also invented a vaccine named ‘Bangavax’ but it is yet to be applied on human bodies. Bangladesh began the administration of COVID-19 vaccines on 27 January 2021, focusing initially on a pilot program of 500 health workers, while mass vaccination started on 7 February 2021. An online. registration portal has been launched and citizens register there using their NID numbers. Till October 2021, 53,370,057 people have registered for vaccination and 55,213,069 people have been administered at least one dose of vaccine among the target population of 117,856,000 people. It is a matter of delight that 18,293,722 people are already fully vaccinated. On August 7-12, 2021, a week-long special vaccination campaign was held in a bid to inoculate people with little or no education without pre-registration, but just showing their identity cards. Again, the massive vaccination drive for the second shot was held on September 7, 2021. At present, the citizens aged 18 and above are being vaccinated. Even in Dhaka City, students aged 12-17 have also access to the vaccines. The mass vaccination has been going on in full swing and so far more than 87 million of doses have been administered around the country. It is expected that Bangladesh will be able to vaccinate all of its people soon.

বঙ্গানুবাদ : বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে, ২০২২ সালের শুরুর মধ্যেই ৮০% লোককে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের অনুমোদিত ৭টি টিকার মধ্যে বর্তমানে এখানে জার্মানির ফাইলার-বায়োএনটেক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মডানা, চীনের সিনোফার্ম ও সিনোভ্যাক এবং যুক্তরাজ্যের অ্যাস্ট্রাজেনেরা দেওয়া হচ্ছে। বাংলাদেশ ‘নাভ্যাক্স’ নামে একটি টিকাও আবিষ্কার করেছে। তবে এটি এখনও মানবদেহে প্রয়োগ করা হয়নি। প্রথমত ৫০০ স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেখার পাইলট প্রোগ্রামের মাধ্যমে ২০২১ সালের ২৭ জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশে কোডিড-১৯ টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে, তবে গণ টিকাদান শুরু হয়েছে ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে। একটি অনলাইন নিবন্ধন পোর্টাল তৈরি করা হয়েছে যেখানে নাগরিকরা তাদের এনআইডি নাম্বার দিয়ে নিবন্ধন করে থাকে। ২০২১ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত টিকার জন্য ৫,৩,৫ জন নিবন্ধন করেছেন এবং লক্ষ্যমাত্রার ১১৭,৮৫৬,০০০ জনের মধ্যে ৫৫,২১৩,০৬৯ জনকে কমপক্ষে এক ডোজ টিকা প্রদান করা হয়েছে। আনন্দের বিষয় এই যে ১৮,২৯৩, ৭২২ জনকে ইতোমধ্যেই সম্পূর্ণ ভোজ দেওয়া হয়েছে। ২০২১ সালের আগস্ট মাসের ৭ থেকে ১২ তারিখ পর্যন্ত পূর্ব-নিবন্ধন ব্যতীত শুধু পরিচয় পত্র দেখিয়ে স্বল্প শিক্ষিত বা অশিক্ষিত লোকমানকে টিকাদানের উদ্দেশ্যে সপ্তাহব্যাপী টিকাদান কর্মসূচী পালিত হয়। আবার, দ্বিতীয় ডোজের গণটিকা কর্মসূচী পালিত হয় ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ৭ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত। বর্তমানে ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী নাগরিকদের টিকা দেওয়া হচ্ছে। এমনকি ঢাকা শহরে ১২-১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদেরও টিকা নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। টিকাদান কর্মসূচি পুরোদমে চলছে এবং দেশজুড়ে এ পর্যন্ত ৮৭ মিলিয়নের বেশি ডোজ দেওয়া হয়েছে। আশা করা যায় বাংলাদেশ শীঘ্রই তার সমস্ত জনগণকে টিকা প্রদানে সক্ষম হবে।

About admin

Check Also

My childhood

Paragraph: My Childhood (Bangla meaning)

a. What was your childhood like?b. Where did you pass your childhood and how?c. Can …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *